Home / মিডিয়া নিউজ / আমাকে নিয়ে কাজ করার মতো কে আছে: বাঁধন

আমাকে নিয়ে কাজ করার মতো কে আছে: বাঁধন

দেশ ছাড়িয়ে দেশের বাইরে একের পর এক সাফল্য। শুধু সাফল্য বললেও ভুল হবে, কারণ একজন

তারকার জন্য সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার তার জন্য অনেক অড় অর্জনও বটে। তার অভিনয়

নিয়ে কম বেশি সবাই এখন জানেন। বাংলাদেশের সবার মুখে মুখে তার নাম। তিনি হলেন আজমেরি হক বাঁধন।

গতবছর কান উৎসব ছিল বাংলাদেশিদের জন্য বাঁধনময়। তার ছবি ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ নিয়ে এখনও আলোচনায় তিনি। পাচ্ছেন একাধিক সম্মাননা। সর্বশেষ নিউইয়র্কের মোমা-তে নিজের ছবির প্রদর্শনী হলো। সাম্প্রতিক নানা অনুসঙ্গে এক জাতীয় দৈনিকের সঙ্গে কথা বলেছেন এই অভিনেত্রী। সাক্ষাৎকারটি তুলে ধরা হলো-

প্রশ্ন: বর্তমান কাজের ব্যস্ত নিয়ে জানতে চাই—

বাঁধন: আপাতত নতুন কোনো কাজের খবর নেই। তবে সামনের মাসে স্পেনে অনুষ্ঠিব্য একটি চলচ্চিত্র উৎসবে যোগ দেবো। সেখানে ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ প্রদর্শিত হবে। এছাড়া মেরিল প্রথম আলো পুরস্কারে দুটি ক্যাটাগরিতে নমিনেশন পেয়েছি। যেটার আপডেট হয়তো শিগগিরই পাওয়া যাবে।

প্রশ্ন: ‘রেহানা মরিয়ম নূর’-এর এত সাফল্যের পরও আপনার নতুন সিনেমার ঘোষণা পাচ্ছি না কেন?

বাঁধন: নতুন কাজের অফার পাচ্ছি না, বিষয়টি তেমন না। আমি আসলে না বুঝে কোনো কাজ করতে চাই না। তবে খারাপ লাগে এটা ভেবে যে, কার সঙ্গে কাজ করব বা আমাকে নিয়ে কাজ করার মতো কে আছে! বর্তমানে হাতে কোনো কাজ না থাকলেও কাজ করার জন্য মরিয়া হয়ে যাচ্ছি বিষয়টি তেমনও না। কারণ আমি জানি দেশের প্রেক্ষাপটে নারী প্রধান গল্প বা আমাকে টানে এমন গল্প পাওয়া আকাশের চাঁদ পাওয়ার মতো। যদিও আমি আশাবাদী শিগগিরই হয়তো মনে রাখার মতো কাজে যুক্ত হতে পারব।

প্রশ্ন: কান উৎসবের গত আসরে আপনার অংশগ্রহণ ছিল দেশের চলচ্চিত্রের জন্য অত্যন্ত গৌরবের। অনেকেই ভেবেছিলেন অ্যাডভাইজার বা দর্শক হিসেবে এবারের আসরে আপনার দেখা মিলবে। কিন্তু এবারের আসরে আপনার কেন যাওয়া হয়নি?

বাঁধন: প্রতিবছরই কান উৎসবে দেশের কেউ না কেউ যাচ্ছেন। এর আগে তৌকীর ভাই, অমিতাভ ভাই, জয়া আপু, বিপাসা আপু’সহ অনেকেই কান উৎসবে গেছেন। এবার শুভ, তিশা, অনন্ত জলিল, বর্ষাও গেছেন। অনেক সিনেমার ট্রেলার সেখানে দেখানো হয়েছে। তবে আমাদের আগে বুঝতে হবে, এমনিতে ট্রেলার প্রকাশ করতে যাওয়া এবং অফিসিয়াল সিলেকশন হয়ে যাওয়ার মাঝে বিরাট পার্থক্য রয়েছে। সেই জায়গা থেকে বলবো, এবার আমার তো ট্রেলার প্রকাশ করার মতো কোনো সিনেমা নেই। তাছাড়া আমি নির্মাতা বা প্রযোজকও নই।

প্রশ্ন: নিশ্চয় এবারের উৎসবটিরও নিয়মিত খোঁজখবর রাখছেন। ‘মুজিব’সহ ৩টি সিনেমার ট্রেলারও উৎসবে প্রকাশিত হয়েছে। এবারের আসরের সার্বিক বিষয় নিয়ে আপনি কী মন্তব্য করবেন?

বাঁধন: এ রকম ট্রেলার লঞ্চ আগেও হয়েছে। তবে এতে বিশ্বের অনেকেই বাংলাদেশি সিনেমা সম্পর্কে জানতে পারছেন। এছাড়া বাংলাদেশের চলচ্চিত্র সমালোচক বিধান রিবেরু এ বছর ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অব ফিল্ম ক্রিটিকসের (ফিপরেস্কি) বিচারক হিসেবে রয়েছেন। এটা সত্যি অনেক গর্বের বিষয় আমাদের জন্য।

প্রশ্ন: সম্প্রতি একটি হিন্দি সিনেমার কাজ শেষ করেছেন। সিনেমা কবে পর্দায় আসবে?

বাঁধন: এরইমধ্যে সিনেমাটি কাজ খুব ভালোভাবেই শেষ করেছি। সিনেমাটি চলতি বছরই মুক্তি কথা রয়েছে।

প্রশ্ন: বিশাল ভরদ্বাজের মতো নির্মাতার সঙ্গে কাজের অভিজ্ঞতা কেমন ছিল?

বাঁধন: ভীষণ ভালো লেগেছে যে, ওনার মতো একজন নির্মাতার সঙ্গে কাজ করতে পেরেছি। কলকাতার প্রোডাকশনের সঙ্গে কাজের অভিজ্ঞতা তেমন ভালো না হলেও বোম্বের অভিজ্ঞতা খুবই ভালো। যা সারাজীবন মনে থাকবে।

Check Also

চিত্রনায়ক রুবেলের কাছে পপি ‘স্পেশাল’!

ঢাকাই ছবিতে মার্শাল আর্ট ব্যবহার যার মাধ্যমে সেই চিত্রনায়ক রুবেল বাংলা ছবির দর্শকদের অনেক জনপ্রিয় …

Leave a Reply

Your email address will not be published.