Home / মিডিয়া নিউজ / ভয় ভয় লাগে: পূর্ণিমা

ভয় ভয় লাগে: পূর্ণিমা

শত্রু ঘায়েল’ ছবিতে শিশুশিল্পী হিসেবে অভিনয় শুরু করেছিলেন পূর্ণিমা। তবে জাকির হোসেন রাজুর

‘এ জীবন তোমার আমার’ ছবির মধ্য দিয়ে নায়িকা পূর্ণিমার নায়িকা হিসেবে যাত্রা শুরু হয়। করোনা

আক্রান্ত হয়েছিলেন পূর্ণিমা। আক্রান্ত হবার পরই চলে যান কোয়ারেন্টিনে। করোনা জয় করে ইতিমধ্যে

কাজেও ফিরেছেন তিনি। অংশ নিয়েছেন নায়ক ফেরদৌস এর বিপরীতে নইম ইমতিয়াজ নেয়ামূলের ‘জ্যাম’ সিনেমায়।

-> ‘জ্যাম’ নিয়ে দর্শকদের কি বলতে চান?

পূর্ণিমাঃ করোনা পরিস্থিতির কারণে অনেক দিন কাজ করিনি। তবে এবার কাজ শুরু করলাম। যতটুকু সচেতন থেকে কাজ করা যায় করছি। তারপরও ভয় ভয় লাগে। ‘জ্যাম’ ছবির গল্প ও তাতে আমার চরিত্র চমৎকার। খুব সুন্দর একটি ছবি পেতে যাচ্ছেন দর্শক।

-> তাহলে কি নিয়মিত কাজ করবেন এখন?

পূর্ণিমাঃ আমি করোনার আগেও একেবারে নিয়মিত কাজ করিনি। আর এখন তো প্রশ্নই উঠে না। খুব বেছে কাজ করবো। সচেতনতা এবং নিরাপত্তাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ আমার কাছে। আর শীত চলে আসছে। করোনার সেকেন্ড ওয়েভ নাকি আসছে! তাই সবারই আরো সচেতন হতে হবে। কারণ নিজেকে এবং পরিবারকে নিরাপদে রাখাই সব থেকে জরুরি।

-> সিনেমার এখনকার পরিস্থিতি নিয়ে কিছু বলুন

পূর্ণিমাঃ চলচ্চিত্রের অবস্থা এমনিতেই তো ভালো ছিলো না। যদিও খুব ভালো ভালো সিনেমা হচ্ছে এখন। করোনার কারণে অবস্থা আরো খারাপ চলচ্চিত্রের। সব স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত আসলে অবস্থা ঠিক তেমন হবে না। আর সব স্বাভাবিক কবে হবে সেটা অনিশ্চিত। এ অবস্থায় কিভাবে কাজ করবেন তার জবাবে পূর্ণিমা বলেন, যেদিন থেকে সাধারণ ছুটি শুরু হয়েছিল তারপর আমি কোথাও যাইনি। বেরই হইনি। আর কাজ তো দূরের কথা। কিন্তু কতদিন আর বন্দি হয়ে থাকা যায়। তবে অবশ্যই সচেতন হয়ে কাজ করতে হবে। এর বিকল্প নেই।

‘মনের মাঝে তুমি’, ‘হৃদয়ের কথা’, ‘প্রেমের নাম বেদনা’, ‘আকাশ ছোঁয়া ভালোবাসা’, ‘শাস্তি’, ‘শুভা’, ‘মেঘের পরে মেঘ’, ‘স্বামী-স্ত্রীর যুদ্ধ’সহ অসংখ্য সিনেমায় অভিনয় করে দর্শকপ্রিয়তা অর্জন করেন পূর্ণিমা। ‘ওরা আমাকে ভালো হতে দিল না’ ছবির জন্য ২০১০ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও পান তিনি।

Check Also

মেয়ের ভবিষ্যৎ নিয়ে মুখ খুললেন মিথিলা

তাহসানের সঙ্গে ১১ বছরের সংসার জীবনের সমাপ্তি ঘটানোর পর কলকাতার পরিচালক সৃজিত মুখার্জির সঙ্গে গাঁটছড়া …

Leave a Reply

Your email address will not be published.