Home / মিডিয়া নিউজ / ‘সালমানের মাথায় রুমাল বেঁধে দিলাম, সেই স্টাইল সারাদেশে ছড়িয়ে গেল’

‘সালমানের মাথায় রুমাল বেঁধে দিলাম, সেই স্টাইল সারাদেশে ছড়িয়ে গেল’

এসেছিলেন অভিনেতা ওয়াসিমুল বারী রাজীবের হাত ধরে এফডিসিতে। পটুয়াখালীতে রাজীবের বাড়ির

পাশেই সেলিমের বাড়ি। তার সাথে ভাব জমিয়ে একবার এফডিসিতে চলে আসেন।

আর রাজীবও সেলিমকে পছন্দ করতেন। চলচ্চিত্রে কাজ করতে চান সেলিম।

রাজীবের সাথে ঘুরতে এলেন ঠিকই কিন্তু মাথায় কাজের চিন্তা, কিন্তু কী করবেন এফডিসিতে সেলিম? সেটা আশির দশকের একেবারে গোঁড়ার দিকের কথা। ৬ নম্বর ফ্লোরে রাজীবের সাথে ঘুরছিলেন। রাজীব সেলিমকে পুরৈ শুটিং সেটে ছেড়ে দিয়ে বললেন, সিনেমার প্রতি তোর এতো আগ্রহ, দেখ তো এখানে তোর কী হতে ইচ্ছে করে?’ সেলিম বললেন, তার মেকআপ আর্টিস্ট হতে ইচ্ছে করে।

রাজধানীর এফডিসির তিন নম্বর ফ্লোরে কালের কণ্ঠের সাথে আলাপকালে মেক আপ আর্টিস্ট সেলিম বলেন, ‘আমার কেন জানি মেকআপ আর্টিস্ট হতে ইচ্ছে করেছিল। আমি নিজেও আসলে জানতাম না কেন আমার সেটা হতে ইচ্ছে করলো। তবে আমার সেই ইচ্ছে পূরণ হলো। ওয়াসিমুল বারী রাজীব আমাকে সে সুযোগ করে দিলেন। আমি হলাম মেক আপ আর্টিস্ট। তার মেক আপ আমি করতাম।’

মেক আপ আর্টিস্ট হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করা সেলিম মোহাম্মদ মেকআপ করেছেন এখন পর্যন্ত ২৫০ চলচ্চিত্রের। এরমধ্যে সালমান শাহ, শাবনূর, মৌসুমী, ববিতা রয়েছেন। এই মুহূর্তে তিনি ‘জ্যাম’ চলচ্চিত্রের সেটে ঋতুপর্ণার মেকআপ আর্টিস্ট হিসেবে কাজ করছেন। কাজের ফাঁকে স্মৃতিচারণ করছিলেন ফেলে আসা দিনগুলোর কথা। জানালেন সালমান শাহের মাথার মধ্যে বেঁধে রাখা রুমালটি তিনিই বেঁধে দিয়েছিলেন যেটা পরবর্তীতে দেশজুড়ে তরুণদের মধ্যে স্টাইল হয়ে দাঁড়ায়।

সেলিম বলেন, কক্সবাজার ‘স্বপ্নের পৃথিবী’ ছবির শুটিং হইতেছিল। সেই সময় ডিরেক্টর বাদল খন্দকার বললেন সালমানের মাথায় একটা গামছা বা কাপড় টাইপের কিছু বেঁধে দিতে। আমি একটা গামছা (রুমাল) বেঁধে দিলাম। সালমান ভাই খুশি হইয়া গেলেন। সেই ছবির বাকি শুটিং হইছিল নয় নম্বর ফ্লোরের সামনে।

সালমান শাহ সম্পর্কে সেলিমের অনেক উচ্চ ধারণা। তার মতো খুব কম শিল্পী পেয়েছেন এই সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে। তার অনেকগুলও ছবিতে মেক আপ আর্টিস্ট হিসেবে কাজ করেছেন সেলিম।

মেকআপ আর্টিস্ট হিসেবে সেলিম মোহাম্মদ এখনো বেশ জনপ্রিয়। শাবনূরের নিয়মিত মেক আপ আর্টিস্ট ছিলেন। শাবনূরের এ যাবৎকালের সকল চলচ্চিত্রের মেকআপ আর্টিস্টের দায়িত্ব পালন করেন। সেলিম বললেন, ‘শাবনূর আপা দেশে আসলেও এখনও আমারেই ডাকেন।’

শুধু শাবনূর নয়, ঋতুপর্ণাও বাংলাদেশের সব ছবিতে সেলিমকে দিয়েই মেকআপ আর্টিস্ট হিসেবে বেছে নেন। আজকে তার এই অবস্থানের পেছনে অভিনেতা রাজীবের যে অবদান রয়েছে তা সবার আগে স্বীকার নেন সেলিম। সূত্র: কালের কণ্ঠ

Check Also

মেয়ের ভবিষ্যৎ নিয়ে মুখ খুললেন মিথিলা

তাহসানের সঙ্গে ১১ বছরের সংসার জীবনের সমাপ্তি ঘটানোর পর কলকাতার পরিচালক সৃজিত মুখার্জির সঙ্গে গাঁটছড়া …

Leave a Reply

Your email address will not be published.